রোজা

সিয়াম(রোজা) সম্পর্কে কোরআন শরীফের বিবরণ-অতি গুরুত্বপূর্ণ…

হে ইমানদারগণ। তোমাদের প্রতি সিয়াম (রোজা) ফরজ করা হয়েছে যেমনতোমাদের পূর্ববর্তীদের প্রতিও ফরজ করা হয়েছিলো, যাতে তোমরা পাপ থেকে নিজেদেরকে নিবৃত্ত রাখতে সক্ষম হও। কয়েকটি দিন মাত্র।

অতএব, তোমাদের মধ্যে কেউ যদি অসুস্থ হয় (সিয়াম পালনে অক্ষম হয়) কিংবা সফরে থাকে তবে সে অন্য সময়ে গণনা করে সিয়াম আদায় করে নিবে। আর যারা সিয়াম পালনে অপারগ  হবে,  তারা  একজন  নিঃস্ব  ব্যক্তিকে  ফিদ্য়া  (খাদ্য)  দান  করবে।

 

তবে রোজা রাখাই উত্তম যদি তোমরা রোজার মর্যাদা সম্পর্কে সংবাদ রাখো। রমজান মাস, যে মাসে আল কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে, মানুষের জন্য হেদায়েত স্বরূপ। তাতে  রয়েছে প্রকাশ্য  প্রমাণসমূহ  যা  হেদায়েত  ও  সমাধান  দানকারী।

অতএব,

তোমাদের মধ্যে যদি কেউ এ মাসের সাক্ষাৎ পায়, সে যেনো সারা মাস রোজা রাখে। আর যদি কেউ অসুস্থ কিংবা মোসাফির হয় তবে সে অন্য সময়ে আদায় করে নিবে। আল্লাহপাক তোমাদের ব্যাপারে সহজ পন্থা অবলম্বন করতে   চান এবং তোমাদের সঙ্গে কঠোরতা কামনা করেন না।

 

আর যাতে তোমরা রোজার পরিমাণ পূর্ণ করতে পারো। (আর এই রোজা তোমাদের প্রতি এ কারণে ফরজ করা হয়েছে যে)  যাতে  তোমরা  হেদায়েত  প্রাপ্তির  পর  আল্লাহতায়ালার  মহত্ব  বর্ণনা  করতে পারো।  কেননা  হেদায়েত   তো  তিনিই  অনুগ্রহ  করে  দিয়েছেন  সুতরাং  তোমরা যেনো আল্লাহতায়ালারই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করো।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রোজা

সন্তানের জন্য দীর্ঘ ৪৪ বছর টানা রোজা রেখেছেন ’’মা”-মৃত্যুর মাধ্যেমে পূর্ণ করলেন প্রতিজ্ঞা

নারায়ণগঞ্জ বাণী২৪.কমঃ সন্তানের জন্য দীর্ঘ ৪৪ বছর রোজা রেখেছেন মা। অবশেষে বার্ধক্যজনিত কারণে গতকাল সোমাবার বিকালে নিজ

x